জুন ১৪, ২০২৪ ৯:০০ অপরাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

কানাডায় ভারতীয়দের সতর্ক থাকার নির্দেশনা

১ min read

কানাডায় খালিস্তান আন্দোলনের এক শিখ নেতাকে হত্যার জের ধরে সম্প্রতি একে অপরের কূটনীতিকদের বহিষ্কার করার পর ভারত ও কানাডার মধ্যকার সম্পর্কের আরো অবনতি হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে কানাডায় অবস্থান করা ভারতীয় নাগরিকদের এবং যারা কানাডা সফরের পরিকল্পনা করছে তাদরকে সতর্কতা অবলম্বন করার নির্দেশ দিয়েছে ভারতের নরেন্দ্র মোদি সরকার।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘কানাডায় নিরাপত্তার ক্রমবর্ধমান পরিবেশের পরিপ্রেক্ষিতে, বিশেষ করে ভারতীয় শিক্ষার্থীদের চরম সতর্কতা অবলম্বন করার এবং সতর্ক থাকার পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।’

কানাডার ব্রিটিশ কলম্বিয়া রাজ্যে ভারতীয় বংশোদ্ভূত শিখ নেতা হারদ্বীপ সিং নিজ্জারকে নির্মমভাবে গুলি করে হত্যার অভিযোগে কানাডা থেকে ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা রিসার্চ অ্যান্ড অ্যানালাইসিস উইংয়ের (র) প্রধানকে বহিষ্কার করে কানাডা সরকার। সোমবার কানাডা প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো এ ঘোষণা দেন ।

এ ঘোষণার পরপরই কানাডার একজন ঊর্ধ্বতন কূটনীতিককে বহিষ্কার করেছে ভারত। এমনকি তাকে পাঁচদিনের মধ্যে দেশ ছাড়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তবে তার নাম প্রকাশ করা হয়নি।

গত ১৮ জুন কানাডার ব্রিটিশ কলম্বিয়া রাজ্যে ভারতীয় বংশোদ্ভূত শিখ নেতা হারদ্বীপ সিং নিজ্জারকে নির্মমভাবে গুলি করে হত্যা করা হয়। কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো জানান, নিজ্জারকে ভারত সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় হত্যা করা হয়েছে বলে প্রমাণ পেয়েছেন তারা। সোমবার দেশটির আইনসভা হাউজ অব কমন্সের জরুরি অধিবেশনে এমন বিস্ফোরক দাবি করেন জাস্টিন ট্রুডো। তার এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো প্রতিক্রিয়া দেখায়নি ভারত।

ট্রুডোর এমন অভিযোগ করার পর দেশটি ভারতের এক কূটনীতিককে বহিষ্কার করেছে। কানাডার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ম্যালানি জোলি জানিয়েছেন, বহিষ্কৃত ওই কূটনীতিক কানাডায় ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা রিসার্চ অ্যান্ড অ্যানালাইসিস উইং (র)-এর প্রধানের দায়িত্ব পালন করছিলেন।

হারদ্বীপ সিং নিজ্জার ভারতের পাঞ্জাব প্রদেশকে আলাদা ও স্বাধীন খালিস্তান রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার লড়াইয়ের অন্যতম বড় নেতা ছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে, ভারতকে বিচ্ছিন্ন করার তৎপরতায় যুক্ত থাকায় তাকে হত্যা করা হয়েছে।

সূত্র: রয়টার্স ও আনন্দবাজার

Comments

comments

More Stories

১ min read
১ min read
১ min read

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!