জুন ১৬, ২০২৪ ৭:৩৮ অপরাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

প্রথম মুসলিম স্পিকার পেল কর্ণাটক বিধানসভা

১ min read

ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য কর্ণাটকের বিধানসভার স্পিকার নির্বাচিত হয়েছেন ইউ টি কাদের। শুক্রবার কংগ্রেসপন্থী এই বিধায়ক রাজ্য বিধানসভার স্পিকার নির্বাচিত হন বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া।

কর্নাটকের ইতিহাসে এই প্রথম কোনো মুসলিম বিধায়ক বিধানসভার স্পিকার নির্বাচিত হলেন। টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, বিধানসভার বিরোধী দল বিজেপি এবং জনতা দল (সেক্যুলার) স্পিকার নির্বাচনে তাদের প্রার্থী দাঁড় করায়নি। এ কারণে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতাতেই এ পদে নির্বাচিত হন ইউ টি কাদের।

তবে এখনই স্পিকারের আসনে বসতে পারবেন না তিনি। ভারতের সংবিধান অনুযায়ী, কর্ণাটক বিধানসভার বিদায়ী স্পিকার আর ভি দেশপাণ্ডে তার হাতে ক্ষমতা হস্তান্তরের পরই এ আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্বগুহণ করবেন কাদের।

কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী এবং রাজ্য কংগ্রেসের শীর্ষ নেতা সিদ্দারমাইয়াহ নতুন স্পিকার ইউ টি কাদেরকে স্বাগত জানিয়েছেন। এ সংক্রান্ত এক শুভেচ্ছাবার্তায় নতুন স্পিকারকে সংসদীয় আইন ও নিয়ম-কানুনের প্রতি একনিষ্ঠ থাকা ও বিধানসভার সদস্যদের অসংসদীয় ভাষা ব্যবহারের ক্ষেত্রে কঠোর মনোভাব প্রদর্শনের আহ্বান জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

সেই সঙ্গে বিধানসভার সদস্যদের যুক্তিতর্কের মান ক্রমশ কমতে থাকায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন সিদ্দারমাইয়া।

‘আমি আশা করছি, আপনার নেতৃত্বে বিধানসভায় অসংসদীয় শব্দের ব্যবহার কমবে এবং সদস্যদের বিতর্কের মান বাড়বে,’ শুভেচ্ছাবার্তায় বলেন সিদ্দারমাইয়া।

কর্ণাটকের উপমুখ্যমন্ত্রী ডি কে শিবকুমার এক শুভেচ্ছাবার্তায় দেড় বছর আগের হিজাচ আন্দোলনে ইউ টি কাদেররের ভূমিকা স্মরণ করে বলেন, ওই আন্দোলনে সম্পূর্ণ দলের প্রতি সমর্থন রেখে মুসলিমসহ বিভিন্ন ধর্মের মানুষকে কংগ্রেসের পতাকার নিচে আনতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিলেন কাদের।

২০২১ সালের ডিসেম্বরে কর্ণাটকের উদুপি জেলায় হিজাব পরে যাওয়ার কারণে কয়েকজন মুসলিম শিক্ষার্থীকে ক্লাসে ঢুকতে বাধা দেওয়া হয় এবং তার জেরে সেই রাজ্যে শুরু হয় হিজাব আন্দোলন। পরে ভারতের অন্যান্য রাজ্যেও সেই আন্দোলন ছড়িয়ে পড়ে।

ভারতের রাজনৈতিক সহনশীলতাকে বড় একটি চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলেছিল এই আন্দোলন। ওই সময় রাজ্য বিধানসভায় আসীন ছিল বিজেপি।

গত ১০ মে কর্ণাটক বিধানসভা নির্বাচন হয়। ভোট গণনা করে ফলাফল ঘোষণা করা হয় ১৩ মে। ভোটের ফল বিশ্লেষণ করে জানা যায়, রাজ্য বিধানসভার ২২৪টি আসনের মধ্যে ১৩৬টিতেই জয়ী হয়েছে কংগ্রেস।

Comments

comments

More Stories

১ min read
১ min read
১ min read

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!