আগস্ট ১৫, ২০২২ ১২:৫৯ পূর্বাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

ইউএস বাংলানিউজ, নিউইয়র্ক

অগ্রসর পাঠকের বাংলা অনলাইন

বিশ্বে শীর্ষে থাকা ১০ টি মিডিয়া কোম্পানির তালিকা প্রকাশ

বিশ্বে শীর্ষে থাকা ১০ টি মিডিয়া কোম্পানির তালিকা প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বিনিয়োগ বিষয়ক পরামর্শক ও রেটিং প্রতিষ্ঠান ইনভেস্টোপিডিয়া।

প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইটে এ সম্পর্কে বলা হয়েছে বিশ্বজুড়ে বিজ্ঞাপন, ব্রডকাস্টিং, নিউজ, প্রিন্ট পাবলিকেশন, ডিজিটাল মিডিয়া ও মোশন পিকচারভিত্তিক বিভিন্ন কোম্পানির জনপ্রিয়তা ও বার্ষিক আয়ের তথ্য যাচাই-বাছাই শেষে প্রস্তুত করা হয়েছে এ তালিকা।

ইনভেস্টোপিডিয়ার তালিকায় থাকা শীর্ষ ১০ কোম্পানি হলো-

১. নেটফ্লিক্স (এনএফএলএক্স): ১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠিত মিডিয়া কোম্পানি নেটফ্লিক্সের বার্ষিক আয় ২০২০ সালে ছিল ২৩৪ বিলিয়ন ডলার। যাত্রার শুরুতে ডিভিডি ভিত্তিক কোম্পানি থাকলেও পরে সম্পূর্ণ অনলাইন স্ট্রিমিং প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে ওঠা নেটফ্রিক্সের সাবস্ক্রাইবারের সংখ্যা ২০১৯ সালে ছিল ১৬৭ মিলিয়ন।

২. ওয়াল্ট ডিজনি (ডিআইএস): বিশ্বের সবচেয়ে পরিচিত ও জনপ্রিয় মিডিয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে অন্যতম ওয়াল্ট ডিজনি ২০২০ সালে ২২০ বিলিয়ন ডলার আয়ের মাধ্যমে ইনভেস্টোপিডিয়ার তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে। ১৯২৩ সালে প্রতিষ্ঠিত এই কোম্পানিটির সদর দফতর যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের বুরবাঙ্ক শহরে। শুরু থেকে একটি বড় সময় পর্যন্ত অ্যানিমেশন ফিল্ম প্রস্তুত করলেও বর্তমানে চলচ্চিত্রেও বিনিয়োগ করা শুরু করেছে ওয়াল্ট ডিজনি।

৩. কমকাস্ট কর্প (সিএমসিএসএ): তালিকায় তৃতীয় স্থানে থাকা মিডিয়া কোম্পানি কমকাস্ট কর্পের (সিএমসিএসএ) আয় ২০২০ সালে ছিল ২০৯ বিলিয়ন ডলার। ১৯৬৩ সালে প্রতিষ্ঠিত এই কোম্পানির সদর দফতর যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভেনিয়া অঙ্গরাজ্যের বৃহত্তম শহর ফিলাডেলফিয়ায়। যেসব ক্ষেত্রে কমকাস্ট কর্পের বিনিয়োগ আছে, সেগুলো হলো- ক্যাবল কমিউনিকেশন, ক্যাবল নেটওয়ার্ক, ব্রডকাস্ট টেলিভিশন চ্যানেল এবং থিমপার্ক।

৪. এটি অ্যান্ড টি (এটিটি): ২০৩ বিলিয়ন ডলার আয় করে ইনভেস্টোপিডিয়ার তালিকায় চতুর্থ স্থান অর্জন করেছে যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসভিত্তিক মিডিয়া কোম্পানি এটি অ্যান্ড টি বা এটিটি। ওয়ার্নার ব্রাদার্সের সঙ্গে যৌথভাবে অ্যানিমেশন ফিল্ম, টিভি শো, ও ভিডিওগেমস নির্মাণের পাশাপাশি টিএনটি, টিবিএস, সিএনএন ও কার্টুন নেটওয়ার্কের মতো জনপ্রিয় বৈশ্বিক চ্যানেলগুলোর সঙ্গেও অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে কাজ করে এটি অ্যান্ড টি।

৫. চার্টার কমিউনিকেশন (সিএইচটিআর): ২০২০ সালে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ক্যাবল কানেকশন কোম্পানি চার্টার কমিউনিকেশনের আয় ছিল ১৩০ বিলিয়ন ডলার। মূলত ভিডিও, হাই-স্পিড ডেটা ও ভয়েস সেবা সরবরাহকারী এই কোম্পানির মোট গ্রাহক সংখ্যা ২৬ মিলিয়ন।

৬. সনি (এসএনই): একসময়ের ইলেকট্রনিক পণ্য উৎপদানকারী জায়ান্ট কোম্পানি সনি (এসএনই) গত কয়েক বছর ধরে মিডিয়ার বিভিন্ন ক্ষেত্রেও বিনিয়োগ করছে। মূলত নেটওয়ার্ক সার্ভিস, সঙ্গীত, সিনেমা ও ইলেকট্রনিক পণ্যে বিনিয়োগকারী এই প্রতিষ্ঠানটি ২০২০ সালে ৯৫ বিলিয়ন ডলার আয় করে ইনভেস্টোপিডিয়ার তালিকায় ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে।

৭. থমসন রয়টার্স ফাউন্ডেশন (টিআরআই): বিশ্বের সবচেয়ে আস্থাভাজন সংবাদমাধ্যমগুলোর মধ্যে একটি থমসন রয়টার্স ফাউন্ডেশনের মোট আয় ২০২০ সালে ছিল ৪০ বিলিয়ন ডলার। ইনভেস্টোপিডিয়ার তালিকায় সপ্তম স্থানে রয়েছে কোম্পানিটি।

৮. ভায়াকমসিবিএস (ভিআইএসি): ২০০৫ সালে প্রতিষ্ঠিত মার্কিন কোম্পানি ভায়াকম মূলত বিনোদনমূলক কন্টেন্ট প্রস্তুত করত। ২০১৯ সালে এটি মার্কিন মিডিয়া কোম্পানি সিবিএসের সঙ্গে একীভূত হয়ে নাম নেয় ভায়াকমসিবিএস। ২০২০ সালে ১৭ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলার আয় করে সপ্তম স্থানে রয়েছে এই কোম্পানি।

৯. ফক্স কর্পোরেশন (ফক্স): একসময়ের বৈশ্বিক মিডিয়া ও এন্টারটেইনমন্টে কন্টেন্ট বাণিজ্যের পাওয়ার হাউস বলে পরিচিত ফক্স কর্পোরেশনের বার্ষিক আয় ২০২০ সালে ছিল ১৫ দশমিক ৪ বিলিয়ন ডলার। ইনভেস্টোপিডিয়ার তালিকায় নবম স্থানে আছে এই কোম্পানি।

১০. ডিশ নেটওয়ার্ক কর্পোরেশন (ডিআইএসএইচ): স্যাটেলাইট ব্রডকাস্ট, ব্রডব্যান্ড সার্ভিস, চলচ্চিত্র ও ভিডিওগেম জাতীয় পণ্য ও সেবা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ডিশ নেটওয়ার্ক কর্পোরেশনের বার্ষিক আয় ২০২০ সালে ছিল ১৪ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলার। ইনভেস্টোপিডিয়ার তালিকায় দশম স্থানে আছে কোম্পানিটি।

আরও পড়ুন

error: Content is protected !!