জুলাই ২৫, ২০২৪ ১২:০৫ অপরাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

ইউক্রেন সীমান্ত থেকে সৈন্য প্রত্যাহারের ঘোষণা রাশিয়ার

১ min read

অবশেষে ইউক্রেন সীমান্ত থেকে সৈন্য প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে রাশিয়া। কাতার ভিত্তিক গণমাধ্যম আলজাজিরার প্রতিবেদনে এই তথ্য পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী সের্গেই শোইগু সেনাদের ঘাঁটিতে ফেরার আদেশ দেন। ইউক্রেন সীমান্তে রাশিয়ার লাখো সেনা মোতায়েন নিয়ে সপ্তাহব্যাপী ইউক্রেন এবং পশ্চিমা দেশের সঙ্গে রাশিয়ার উত্তেজনা বিরাজ করছিল।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সম্প্রতি রাশিয়া ইউক্রেনের সঙ্গে বিরোধপূর্ণ এলাকাগুলোর কাছাকাছি এক লাখের বেশি সৈন্য সমাবেশ করেছে এমন খবর প্রকাশের পর উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এসব সৈন্যদের একটি বড় অংশ রয়েছে ক্রিমিয়ায়। এই উপত্যকাকে ২০১৪ সালের মার্চে ইউক্রেন থেকে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেয় রাশিয়া।

বৃহস্পতিবার ক্রিমিয়ায় এক বক্তৃতায় রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী সের্গেই শোইগু বলেন, ‘প্রশিক্ষণরত সেনারা শিগগিরই ঘাঁটিতে ফিরবে। যে উদ্দেশে তারা সেখানে ছিল সেটা অজির্ত হয়েছে।

এর আগে গত সপ্তাহে ইউক্রেনের সঙ্গে চলমান উত্তেজনার মধ্যেই রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে ফোন করেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। গত ১৩ এপ্রিল ওই টেলিফোনে বাইডেন ইউক্রেনের সঙ্গে উত্তেজনা নিরসনের জন্য চাপ দেন। এ ছাড়া পুতিনের সঙ্গে তৃতীয় কোনো দেশে সাক্ষাতেরও প্রস্তাব করেন তিনি।

রাশিয়া সম্প্রতি ইউক্রেন সীমান্তে ২০১৪ সালের পর সর্বোচ্চ সংখ্যক সেনা সমাবেশ ঘটিয়েছে। রাশিয়া দাবি করেছে, পশ্চিমা দেশগুলোর সামরিক জোট ন্যাটোর হুমকি মোকাবিলায় প্রশিক্ষণের অংশ হিসেবে এই সেনা সমাবেশ ঘটানো হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) পররাষ্ট্রবিষয়ক প্রধান জোসেপ বোরেল বলেন, রাশিয়া তার প্রতিবেশী ইউক্রেন সীমান্তে এবং ইউক্রেন থেকে দখল করা ক্রিমিয়া উপদ্বীপে দেড় লাখের বেশি সেনা জড়ো করেছে। এই সংখ্যা দেড় লাখের বেশি হবে। নতুন করে সংঘাতের ঝুঁকির প্রমাণ এটি।

রাশিয়ার সঙ্গে উত্তেজনার বিরাজের মধ্যে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির জেলেনস্কি তুরস্ক সফর করেন। এরপর তুরস্ক রাশিয়ার প্রতি উত্তেজনা কমানোর আহ্বান জানায়। এছাড়া ইউক্রেনের এই প্রেসিডেন্ট রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে সংঘাতপূর্ণ অঞ্চলে সাক্ষাতের আহ্বান জানান। সৈন্য প্রত্যাহারের ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়েছেন তিনি ।

সৈন্য প্রত্যাহারের বিষয়ে রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, দেশ রক্ষার জন্য সৈন্যরা উল্লেখযোগ্য সক্ষমতা দেখিয়েছে। ৫৮ এবং ৪১ ব্যাচের কমান্ডার এবং কিছু বিমান ডিভিশনকে তাদের স্থায়ী ঘাঁটিতে ফেরার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। আগামী ১ মের মধ্যে সব সৈন্য প্রত্যাহার হবে বলে জানান তিনি।

Comments

comments

More Stories

১ min read
১ min read
১ min read

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!