ডিসেম্বর ৫, ২০২০ ১২:৫৩ পূর্বাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

ইউএস বাংলানিউজ করপোরেশন, নিউইয়র্ক

অগ্রসর পাঠকের বাংলা অনলাইন

বিজ্ঞাপন বাড়ছে ইউটিউবে, তবে…

যেসব ছোট ইউটিউবার মনেটাইজেশন নীতির আওতায় নেই বা ইউটিউবের সঙ্গে চুক্তি করার জন্য যথেষ্ট রসদ নেই, তারাও বিজ্ঞাপনের আওতায় আসবেন। বর্তমানে শুধু মনেটাইজেশন নীতির অধীনে রয়েছে এমন ইউটিউবারদেরকে বিজ্ঞাপন থেকে আয়ের অংশ দেয় ইউটিউব। কিন্তু অতি শীঘ্রই এ দৃশ্যপট বদলে যাবে।

এরকম ছোট ইউটিউবারদের ভিডিওতে বিজ্ঞাপন ঠিকই প্রচার হবে, কিন্তু বিজ্ঞাপনী আয়ের পুরোটাই রেখে দেবে ইউটিউব। এজন্য নিজেদের শর্তাবলীতেও পরিবর্তন আনছে ভিডিও স্ট্রিমিং জায়ান্ট খ্যাত সাইটটি। এ আরেকটি অর্থ দাঁড়ায়, গোটা প্ল্যাটফর্মেই বাড়বে বিজ্ঞাপন।-বিবিসি।

ইউটিউব জানিয়েছে, ছোট ইউটিউবাররা মনেটাইজেশনের উপযুক্ত হলে আবেদন করতে পারবেন এবং বিজ্ঞাপন থেকে অর্থ আয় করতে পারবেন। এর মানে দাঁড়াচ্ছে, ছোট নির্মাতারা যারা কর্মসূচীর অংশ নন, তারা কোনো বিজ্ঞাপনী অর্থ আয় ছাড়াই ভাইরাল সফলতা পাবেন। – বলেছেন গ্রন্থকার ও সাংবাদিক ক্রিস স্টোকেল-ওয়াকার।

যদিও নির্মাতারা এ সফলতাকে কাজে লাগিয়ে স্পন্সরশিপ বা উপস্থিতির মতো বিকল্প উপায়ে অর্থ আয় করতে পারবেন। কিন্তু তারপরেও ইউটিউবের এ সিদ্ধান্ত অদ্ভুত মনে হচ্ছে। – জানিয়েছেন স্টোকেল ওয়াকার।

তিনি বলেন, ইউটিউব এরই মধ্যে অযৌক্তিকভাবে প্রচুর অর্থ আয় করছে। এটি এমন একটি নীতির পরিবর্তন, যাতে করে সাধারণ নির্মাতাদের সঙ্গে সমস্যা বাড়বে, যারা প্রায়ই অনুভব করেন ইউটিউব তাদের কনটেন্ট দিয়ে ব্যবসা করছে, তাদেরকে সঠিক হিস্যা না দিয়েই – বা প্ল্যাটফর্মের সাফল্যে তাদেরকে স্বীকৃতি না দিয়ে।

বর্তমানের নিয়ম অনুসারে, কোনো ইউটিউব চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার এক হাজারের বেশি হলে এবং এক বছরে ওয়াচটাইম চার হাজার ঘণ্টার বেশি হলে, ওই চ্যানেল মনেটাইজেশনের জন্য আবেদন করতে পারে।

আরও পড়ুন

error: Content is protected !!