নভেম্বর ২৯, ২০২২ ১০:৫২ পূর্বাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

ইউএস বাংলানিউজ, নিউইয়র্ক

অগ্রসর পাঠকের বাংলা অনলাইন

বিকল্পধারায় যোগ দিলেন শমসের মবিন

বিএনপির রাজনীতি থেকে অবসরে যাওয়া দলের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান শমসের মবিন চৌধুরী ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন বিকল্পধারা বাংলাদেশে যোগ দিয়েছেন। এ ছাড়া ছাত্রদলের প্রথম নির্বাচিত সভাপতি গোলাম সারোয়ার ও সাবেক মন্ত্রী (এরশাদ সরকার) নাজিম উদ্দিন আল আজাদও বিকল্পধারায় যোগ দেন।

২৬ অক্টোবর, শুক্রবার বিকেল সোয়া ৪টার দিকে তারা বি চৌধুরীর হাতে ফুল দিয়ে বিকল্পধারায় যোগ দেন। এর আগে বিকল্পধারার অঙ্গ সংগঠন বিকল্প যুবধারার বিশেষ কাউন্সিলে যোগ দেন তারা। পরে বিকল্প ধারার যুগ্ম মহাসচিব মাহী বি চৌধুরী তাদের আমন্ত্রণ জানিয়ে মঞ্চে নিয়ে আসেন।

সাবেক পররাষ্ট্র সচিব শমসের মবিন চৌধুরী চাকরি থেকে অবসর নিয়ে বিএনপিতে সক্রিয় হলেও বেশ কয়েকটি মামলার আসামি হওয়ার পর কয়েক বছর আগে দল থেকে অব্যাহতি নেন। তখন রাজনীতিই ছাড়ার কথা জানিয়েছিলেন তিনি।

শমসের মবিন শুক্রবার বিকল্পধারার অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘তিন বছর আগে রাজনীতি থেকে অবসরের সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় আমি বলেছিলাম, আবার রাজনীতিতে ফিরব, যদি কেউ মুক্তিযুদ্ধের ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে এগিয়ে আসে তবে আমি যোগ দেব।’

‘আমি বি চৌধুরীর সাহসী ও দেশপ্রেমিক নেতৃত্বে যোগ দিয়েছি সুখী, সমৃদ্ধ, শান্তিপূর্ণ ও স্বাভাবিক বাংলাদেশ গঠনে নিজেদের অবস্থান থেকে ভূমিকা রাখার জন্য।’

মঞ্চে এ সময়  উপস্থিত ছিলেন- বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট ত্যাগ করা বাংলাদেশ নাপের চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গাণি ও মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়া, এনডিপি চেয়ারম্যান খোন্দকার গোলাম মোর্ত্তুজা এবং শুক্রবার ২০ দল ছেড়ে আসা বাংলাদেশ লেবার পার্টির একাংশ মহাসচিব হামদুল্লাহ মেহেদী।

বিকল্প ধারা বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব মাহী বি চৌধুরী এ সময় বলেন, ‘আসুন বাংলাদেশকে দুঃশাসনের হাত থেকে রক্ষা করি। বি.চৌধুরীর নেতৃত্বে নানন্দিক ধারার রাজনীতি শুরু করি।’

২০১৫ সালের ২৮ অক্টোবর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উদ্দেশে লেখা এক চিঠির মাধ্যমে বিএনপির রাজনীতি থেকে সরে দাঁড়ান শমসের মবিন চৌধুরী। তখন চিঠিটি তিনি দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে দেন।

এর পরদিন অবসরে যাওয়ার বিষয়টি তিনি গণমাধ্যমকে জানান। ওই চিঠিতে তিনি লেখেন, ‘আমি যুদ্ধাহত একজন মুক্তিযোদ্ধা। শারীরিকভাবে এখন আর রাজনীতি করার মতো অবস্থায় নেই। এ কারণে বিএনপির সব পদ থেকে পদত্যাগ করে অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এখন থেকেই তা কার্যকর হবে।’

শমসের মবিন চৌধুরীকে বিগত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময়ে  পররাষ্ট্রসচিবের দায়িত্ব দেওয়া হয়। ২০০৫ সালে তাকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত করে পাঠানো হয় যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে দুই বছর দায়িত্ব পালন শেষে ২০০৭ সালে তিনি অবসরে যান। ২০০৮ সালে তিনি বিএনপিতে যোগ দেন। ২০০৯ সালে দলের ভাইস চেয়ারম্যান হন। মুক্তিযুদ্ধের সময় লেফটেন্যান্ট ছিলেন তিনি। যুদ্ধে ভূমিকা রাখায় তাকে বীর বিক্রম উপাধি দেওয়া হয়। যুদ্ধাহত হওয়ায় পরবর্তীতে তাঁর চাকরি পররাষ্ট্র দপ্তরে ন্যস্ত হয়।

আরও পড়ুন

error: Content is protected !!