মে ১৪, ২০২১ ৭:৫৮ অপরাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

ইউএস বাংলানিউজ করপোরেশন, নিউইয়র্ক

অগ্রসর পাঠকের বাংলা অনলাইন

নতুন রেকর্ড গড়লেন মেহ্জাবীন

‘একই ধাঁচের গল্প, চরিত্রে অভিনয় করেন’- এই নিন্দাকে সফলতায় বদলে দিয়ে নিজেকে ভার্সেটাইল অভিনেত্রী হিসেবে প্রমাণ করেছেন আগেই। এবার ইউটিউবের ভিউ বিচারের দিক থেকেও সবার চেয়ে এগিয়ে রয়েছেন এ অভিনেত্রী। বলছিলাম সুপারস্টার মেহ্জাবীন চৌধুরীর কথা, যিনি টেলিভিশনের পর্দায় এক অনন্য নাম।

বাংলা নাটকের ইতিহাসে প্রথম কোটি ভিউয়ের মাইলফলক ছুঁয়েছিলো মিজানুর রহমান আরিয়ান পরিচালিত ‘বড় ছেলে’ নাটক। এ নাটকের মধ্য দিয়ে ২০১৭ সালে জিয়াউল ফারুক অপূর্বর সঙ্গে জুটি বেঁধে রেকর্ড গড়ে দর্শকদের কাছে অন্য মাত্রায় পৌঁছে যান মেহ্জাবীন চৌধুরী।

এরপর থেকে ক্রমেই যেন দ্যুতি ছড়াচ্ছেন। সেই থেকে শুরু। এরপর একে একে ভিউয়ের দিক থেকে রীতিমতো চমক দেখাচ্ছেন পর্দার এ সুপারস্টার। তিনিই বাংলাদেশের প্রথম নাট্য অভিনয়শিল্পী যার ২০টি নাটক ইউটিউবে ১ কোটি বারেরও বেশিবার দেখা হয়েছে, যা এখন পর্যন্ত কোন অভিনয়শিল্পীর জন্য সর্বোচ্চ। সেগুলো হলো- বড় ছেলে, বুকের বাঁ পাশে, ব্যাচ ২৭- দ্য লাস্ট পেজ, টম এন্ড জেরি, সাইন্সের মেয়ে আর্টসের ছেলে, যদি তুমি জানতে, ভালো থেকো তুমিও, মিস্টার এন্ড মিস চাপাবাজ, ফটোফ্রেম, ভাই প্রচুর দাওয়াত খায়, শেষটা সুন্দর, অ্যাপয়েনমেন্ট লেটার, গোলাপি কামিজ, ফার্স্ট লাভ, আমার বউ, শিল্পী, লাভ ভার্সেস ক্রাশ, আনএক্সপেক্টেড স্টোরি, ক্যান্ডি ক্রাশ ও শুধু তুমি।

এছাড়াও কোটির দ্বারপ্রান্তে অর্থাৎ নব্বই লাখ পেরিয়ে যাওয়া নাটক রয়েছে ১৪টি। সেগুলো হলো- তোমার অপেক্ষায়, ফ্যাশন, প্রিয় তুমি, গল্পটি তোমারই, কতদিন পর হলো দেখা, তোমার জন্য মন, বেস্ট ফ্রেন্ড, মন বদল, চারুর বিয়ে, ভাইরাল গার্ল, বউ, ফ্ল্যাট বি২, পার্টনার ও ফান।

আশি লাখ পেরিয়ে যাওয়া নাটক রয়েছে ৮টি। যেমন- বেকার, সুখে দুঃখে, বিয়ে, ড্রিম গার্ল, সানগ্লাস, পরিচয়, তোমার ভালোবাসার জন্য ও মি. বয়ফ্রেন্ড। অন্যদিকে এ অভিনেত্রীর ৯৩টি নাটক রয়েছে অর্ধ কোটি পেরিয়ে যাওয়া ভিউয়ের ঘরে।

মাত্র এগারো বছরের ক্যারিয়ারেই এই অনবদ্য অর্জন মেহ্জাবীনের। যেন নিজেকেই নিজে প্রতিনিয়ত চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিচ্ছেন আর নিজেই নিজের প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে এগিয়ে যাচ্ছে দুর্বার গতিতে। এমন অর্জনে বেশ উচ্ছ্বসিত মেহ্জাবীন।

গণমাধ্যমকে মেহ্জাবীন চৌধুরী বলেন, আমি আজকের মেহ্জাবীন হয়েছি কিন্তু দর্শকদের ভালোবাসার কারণেই। তারা প্রতিনিয়তই উৎসাহ দিয়ে যাচ্ছেন ভালো কাজের জন্য, আর আমি সেটাই চেষ্টা করছি। এটা ভেবে অনেক খুশি হই যে, দর্শকরা আমার কাজ দেখেন। দেখার পর নানাভাবে সেগুলোর প্রতিক্রিয়া জানান। তাদের এ ভালোবাসাগুলোই আমাকে সবসময় ভালো কাজের অনুপ্রেরণা দেয়। তাদের এই ভালোবাসাটা যেন সবসময় পাই, এটাই চেষ্টা করবো।

error: Content is protected !!