আগস্ট ১৪, ২০২২ ২:০২ অপরাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

ইউএস বাংলানিউজ, নিউইয়র্ক

অগ্রসর পাঠকের বাংলা অনলাইন

২০৪০ সালের মধ্যে দেশ তামাকমুক্ত হবে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘২০৪০ সালের মধ্যে দেশকে তামাকমুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছি। এ লক্ষ্যে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’

বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস উপলক্ষে ৩০ মে, বুধবার দেওয়া এক বাণীতে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

‘তামাক করে হৃৎপিণ্ডের ক্ষয়: স্বাস্থ্যকে ভালোবাসি, তামাককে নয়’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বৃহস্পতিবার বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস পালিত হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘তামাকজাত দ্রব্যের ব্যবহার জনস্বাস্থ্য ও উন্নয়নের অন্যতম অন্তরায়। এসব সেবনে হৃদরোগ, স্ট্রোক, ক্যান্সার, ডায়াবেটিস, হাঁপানিসহ প্রাণঘাতী বিভিন্ন রোগ সৃষ্টি হয়। এসব রোগের চিকিৎসা ব্যয়বহুল ও দীর্ঘমেয়াদি। তাই তামাকের ব্যবহার কমিয়ে আনার মাধ্যমে এসব রোগ প্রতিরোধে বিশ্বব্যাপী গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।

আওয়ামী লীগ সরকার তামাকের ভয়াল থাবা থেকে সবাইকে রক্ষা করতে ২০১৩ সালে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন সংশোধন ও ২০১৫ সালে বিধি জারি করে। ২০১৪-১৫ অর্থবছর থেকে তামাকজাত দ্রব্যের বিক্রয়মূল্যের ওপর ১ শতাংশ হারে স্বাস্থ্য উন্নয়ন সারচার্জ আরোপ করা হয়েছে। সেখান থেকে সংগৃহীত অর্থ তামাক নিয়ন্ত্রণে ব্যবহারের লক্ষ্যে স্বাস্থ্য উন্নয়ন সারচার্জ ব্যবস্থাপনা নীতি-২০১৭ অনুমোদন করা হয়েছে। শিশুদের কাছে তামাকজাত দ্রব্য ক্রয়-বিক্রয় সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সেই সঙ্গে তামাকের ওপর কর বৃদ্ধি এবং এ কর কাঠামোকে সহজ করার বিষয়টি সরকারের বিবেচনাধীন রয়েছে।’

আইনের যথাযথ প্রয়োগ ও মূল্য বৃদ্ধির মাধ্যমে তামাকের ব্যবহার ক্রমে কমিয়ে আনা সম্ভব জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এর জন্য জনসচেতনতা প্রয়োজন। তামাক সেবনের কোনো সুফল নেই—মানুষের কাছে এই বার্তা নিয়ে যেতে হবে। এ জন্য সরকার, বেসরকারি সংগঠনসহ সমাজের সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে একসাথে কাজ করতে হবে।’

প্রধানমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন, সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বাংলাদেশকে তামাকমুক্ত করে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে তোলা সম্ভব হবে।

আরও পড়ুন

error: Content is protected !!