ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২৪ ৫:৪২ পূর্বাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

প্রয়োজনে বাবার মতো বুকের রক্ত দিতেও আমি প্রস্তুত: প্রধানমন্ত্রী

১ min read

দেশের মানুষের কল্যাণের জন্য যে কোনো ত্যাগ স্বীকারে প্রস্তুত আছেন বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু এ দেশ স্বাধীন করে দিয়ে গেছেন। আপনাদের ভাগ্য গড়া আমার কাজ। মানুষকে যেন আর কষ্ট করতে না হয় সেটাই আমার লক্ষ্য। প্রয়োজনে বাবার মতো বুকের রক্ত দিতেও আমি প্রস্তুত।

শনিবার মাতারবাড়ী কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্র-সংলগ্ন টাউনশিপ মাঠে মহেশখালী উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদ্বোধন করলাম। এখানে অনেক মানুষের কর্মসংস্থান হবে। বিদ্যুৎ যাবে জাতীয় গ্রিডে। কুতুবদিয়ায় বিদ্যুৎ গেলো। বিদ্যুতের জন্য আর এ অঞ্চলের মানুষকে কষ্ট করতে হবে না।

তিনি বলেন, অনেকে ভেবেছিলো এখানে কিছু হবে না। এখন আলোকিত মাতারবাড়ী, আলো ঝলমলে এলাকা। আমাদের লক্ষ্য দেশের মানুষের উন্নয়ন। সেজন্যই কাজ করে যাচ্ছি। প্রত্যেক ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম সেটা বাস্তবায়ন করেছি। আওয়ামী লীগ জনগণের সেবক। জনগণের জন্য কাজ করে। নৌকা মার্কায় ভোট দিলেই উন্নয়ন হয়।

তিনি বলেন, জলবায়ু ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য খুরুশকুলে আশ্রয়ণ প্রকল্প করে দিয়েছি। সব ভূমিহীন, গৃহহীনদের ঘর করে দিচ্ছি। কোনো মানুষ গৃহহীন থাকবে না।

সরকারপ্রধান বলেন, ১৯৭৫ এর পর যারা ক্ষমতায় এসেছিলো তারা মানুষের দিকে ফিরেও তাকায়নি। ১৯৯১ এ ঘূর্ণিঝড়ে হতাহতদের দেখতে তখনকার প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া আসেনি। এসেছিলাম আমি আর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

দেশের মানুষ শান্তিতে থাকুক সেটাই আমরা চাই। দ্রব্যমূল্য যখন বেড়েছে তখন স্বল্পমূল্যের উপকারভোগী কার্ড দিয়ে সহায়তা করা হচ্ছে; যোগ করেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতা আসলে দেশের উন্নয়ন হয়। আর বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে লুটপাট দুর্নীতি করে। তারা মানুষের কল্যাণ করে না। আবার যেন মানুষের সেবা করতে পারি সেজন্য আবার নৌকায় ভোট চাই।

সরকারপ্রধান বলেন, দুঃখের বিষয় হলো, যখন রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ বাধল, স্যাংশন-কাউন্টার স্যাংশনের ফলে মুদ্রাস্ফীতি একটু বেড়েছে। সেটা নিয়ন্ত্রণে আমরা চেষ্টা চালিয়েছি। খুব শিগগির এই মূল্যস্থীতি হ্রাস পাবে। মানুষ আরও ভালোভাবে চলতে পারবে, থাকতে পারবে।

সম্প্রতি বিএনপির অবরোধ কর্মসূচিকে সহিংস উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিএনপির মধ্যে দেশাত্মবোধ নেই, মনুষত্ববোধ নেই। মনুষত্ববোধ থাকলে তারা জীবন্ত মানুষকে পুড়িয়ে মারতে পারতো না। আওয়ামী লীগ সৃষ্টি করে, আর বিএনপি করে ধ্বংস।

বিকেল পৌনে চারটার দিকে মাতারবাড়ী কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র-সংলগ্ন টাউনশিপ মাঠে আয়োজিত জনসভায় উপস্থিত হন প্রধানমন্ত্রী। এর আগে এর আগে দুপুরে ১৮ হাজার কোটি টাকায় নির্মিত দোহাজারী-কক্সবাজার রেললাইন ও কক্সবাজারের আইকনিক রেলস্টেশন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। আইকনিক স্টেশনের উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ রেলওয়ে নেটওয়ার্কের ৪৮তম জেলা হিসেবে যুক্ত হয় কক্সবাজার।

তার পর কক্সবাজার জেলায় শেষ হওয়া ১৪টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে তিনি চারটি নতুন উন্নয়ন প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, অন্য সরকারের সময় রেল সবসময় অবহেলিত ছিল। এই সংযোগ পর্যটন খাতে ব্যাপক পরিবর্তন আনবে। তিনি বলেন, বাইরে থেকে কারও খরদারি চলবে না। আগুন দিয়ে যারা মানুষ পোড়ায় তাদের চোখ না মনই অন্ধকার।

Comments

comments

More Stories

১ min read
১ min read
১ min read

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!