জুলাই ২৫, ২০২৪ ১২:২০ অপরাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

‘৩৫ লাখ পরিবার পাবে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার’

১ min read

চলমান লকডাউনে গত বছরের মতো এ বছরেও প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার পাবে ৩৫ লাখ দরিদ্র পরিবার। ঈদ উপহারের টাকা বিতরণের কাজ শিগগিরই শুরু হবে। বুধবার দুপুরে অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে ভার্চ্যুয়ালি অর্থনৈতিক বিষয়ক সংক্রান্ত ও সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদেরএ কথা জানান অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

অর্থমন্ত্রী বলেন, আমাদের মিসম্যাচটা হওয়ার কারণ হলো আমাদের যেসব প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর বা পিছিয়ে পড়া জনগণের কথা বলছেন, তাদের যে আইডিটা কার্ড বা মাধ্যম রয়েছে সেখানে সরাসরি ট্রান্সফার করে দিই। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে সেই ট্রান্সফারের উপযুক্ত থাকে না। সেজন্য একটু বিলম্ব হয়, মিসম্যাচ হয় না। কিন্তু আমরা কাজগুলো করছি।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী ইতিবাচক সাড়া দিয়েছেন। এই আড়াই হাজার টাকা বিতরণের কাজ শিগগিরই শুরু হবে। যাদের আমরা আড়াই হাজার টাকা করে দেব, সরকারের সিদ্ধান্ত হচ্ছে এই টাকা সরাসরি ট্রান্সফার করা। সরাসরি ট্রান্সফার করতে গেলে সিস্টেম ডেভলপ করতে হবে। আর একবার যদি সিস্টেমে চলে আসে তাহলে ভবিষ্যতে এর চেয়ে সহজ কাজ আর হবে না।

এর আগে দেশের বিভিন্ন জেলা প্রশাসনের তত্বাবদানে স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও মেম্বাররা মিলে ক্ষতিগ্রস্ত ৫০ লাখ পরিবারের তালিকা তৈরি করেন। অর্থ বিতরণ শুরুর পর দেখা যায়, তালিকায় অনেক ত্রুটি রয়েছে। কোনো কোনো ক্ষেত্রে অবস্থাপন্ন ও স্বচ্ছল পরিবারকে এ তালিকার অন্তর্ভুক্ত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এরপর ৫০ লাখের তালিকা থেকে ১৪ লাখ ৩৩ হাজার পরিবারকে বাদ দেয় সরকার। এর মধ্যে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি থেকে সুবিধা নেয়া পরিবার রয়েছে এক লাখের বেশি।

যারা সহায়তা পাবেন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চলমান করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত নিম্ন আয়ের প্রায় ৩৫ লাখ পরিবার এবং অতি সম্প্রতি ঘটে যাওয়া প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত প্রায় এক লাখ কৃষকসহ ৩৬ লাখ পরিবারকে নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান করবেন। তিনি নিম্ন আয়ের মানুষের পরিবারপ্রতি আড়াই হাজার টাকা করে এবং প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক পরিবারপ্রতি পাঁচ হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা প্রদান করবেন। এ বাবদ সরকারের ৯৩০ কোটি টাকা ব্যয় হবে।

Comments

comments

More Stories

১ min read
১ min read
১ min read

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!