অক্টোবর ২৭, ২০২০ ১২:২৬ পূর্বাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

ইউএস বাংলানিউজ করপোরেশন, নিউইয়র্ক

অগ্রসর পাঠকের বাংলা অনলাইন

সাবেক স্ত্রীর পরকীয়ার গুঞ্জন, মামলা করবেন অপূর্ব

‘কোনো ধরনের ভনিতা না রেখেই বলছি গত দুদিন থেকে দেখা যাচ্ছে কিছু কিছু ভুঁইফোড় ধরনের অনলাইন পত্রিকা কোনো ধরনের তথ্য-প্রমাণ ছাড়াই আমার সাবেক স্ত্রী নাজিয়া হাসান অদিতি এবং আমার বিচ্ছেদের ব্যাপারে অত্যন্ত কুরুচিপূর্ণ মিথ্যা প্রোপাগান্ডা ছড়াচ্ছে, যা আমার এবং অদিতির জন্য অত্যন্ত বিব্রতকর। আমি আগেও বলেছিলাম অদিতির সাথে আমি এখন সাংসারিক জীবনে না থাকলেও সে আমার সন্তানের মা’- এভাবেই একটি দীর্ঘ স্ট্যাটাসের শুরু করেছেন জনপ্রিয় অভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্ব।

স্ট্যাটাসে অপূর্ব জানিয়েছেন, যারা কোনো রকম তথ্য-প্রমাণ ছাড়াই তার প্রাক্তন স্ত্রীকে নিয়ে নোংরা গল্প বানিয়ে সেটা প্রকাশ করে তার সম্মানের হানি করেছেন তাদের বিরুদ্ধে মামলা করবেন।

বুধবার (২২ জুলাই) গোয়েন্দা সংস্থার বরাত দিয়ে করোনাভাইরাস চিকিৎসার নামে প্রতারণা ও জালিয়াতির মামলায় গ্রেফতার এক দুর্নীতিবাজের সঙ্গে অপূর্ব স্ত্রী অদিতিকে জড়িয়ে কিছু সংবাদ প্রকাশ হয়। সেখানে দাবি করা হয়, ওই দুর্নীতিবাজের সঙ্গে নাকি পরকীয়া ছিল অদিতির। সেই তথ্য পেয়েই অদিতিকে ডিভোর্স দেন অপূর্ব।

ঘটনাটি পুরোপুরি বানোয়াট গল্প বলে দাবি করে মিথ্যা তথ্য ছড়ানোর জন্য হুঁশিয়ারি দেন অপূর্ব। নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে দীর্ঘ স্ট্যাটাসে তিনি এ প্রসঙ্গে লিখেছেন, ‘অদিতির সম্মান নিয়ে বা অদিতির নামের সাথে জড়িয়ে তৃতীয় কারও নাম নিয়ে যে বা যারা কোনো ধরনের কোনো নোংরা খেলায় মাতবে এদের কাউকেই আমি ছেড়ে কথা বলবো না। গোয়েন্দা সংস্থার বরাত দিয়ে দেশের একজন দুর্নীতিবাজের সঙ্গে আয়াশের মাকে জড়িয়ে এই ধরনের মিথ্যা এবং কাল্পনিক ঘটনা প্রচার করার জন্য আমি এই দেশের একজন সুনাগরিক হিসেবে এর তীব্র প্রতিবাদ করছি।

শুধু প্রতিবাদই না আমাদের ব্যক্তিগত জীবনের ঘটনা নিয়ে এ ধরনের নোংরা মিথ্যাচার ছড়ানোর দায়ে আমি এসব পত্রিকার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করার প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি, যা আজকালের ভেতরে সম্পন্ন হবে। আমি খুব স্পষ্টভাবে বলতে চাই, অদিতি আমার স্ত্রী ছিল এবং এখন সে আমার সন্তানের মা। আমার নয় বছরের সাংসারিক জীবনে অদিতিকে নিয়ে আমার কোনো ধরনের অভিযোগ নেই এবং ভবিষ্যতেও থাকবে না। বরং আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ মানুষদের ভেতরে অদিতি একজন, যাকে আমি আজীবন সম্মান করে যাব।

তার সাথে এইটাও বলতে চাই অদিতির যেকোনো সম্মানহানিকর ব্যাপারে আমি এভাবেই ওর পাশে থাকবো। আমি আবারও বলছি, অদিতি আমার স্ত্রী না থাকলেও সে আমার সন্তানের মা। সুতরাং আয়াশের মায়ের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের কোনো ষড়যন্ত্র বা নোংরামিকে আমি মেনে নেব না। গোয়েন্দা সংস্থার নাম ভাঙিয়ে অদিতি এবং আমাকে জড়িয়ে এ ধরনের মিথ্যা অপপ্রচার চালানো অনলাইন পত্রিকার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আমি আইন প্রয়োগকারী সংস্থার দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

সেই সাথে আবারও বলছি, এ ধরনের কুরুচিপূর্ণ মিথ্যা কল্পকাহিনি ছড়ানোর দায়ে আমি ওই সব অনলাইন পত্রিকার বিরুদ্ধে মামলা করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি। আমি আরও স্পষ্ট ভাষায় জানাতে চাই, যে বা যারা এই নোংরা খেলার সাথে জড়িত তাদের প্রত্যেককে চিহ্নিত করে আমি আইনের আওতায় আনবো। আমি আশা করবো মূল ধারার গণমাধ্যমগুলো আমাকে এ ব্যাপারে সত্য প্রকাশ করে সহায়তা করবেন। কারণ দীর্ঘ সময় মিডিয়ায় কাজ করার সুবাদে তাদের কাছে আমার এই দাবি থাকতেই পারে।’

আরও পড়ুন

error: Content is protected !!