এপ্রিল ১৮, ২০২৪ ৪:১৬ অপরাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

‘পোস্টারে তারেক-খালেদার ছবি আচরণবিধির লঙ্ঘন’

১ min read

নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণায় দলের সভাপতি হিসেবে বিএনপির প্রার্থীরা খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের ছবি ব্যবহার করছেন। এটি নির্বাচন আচরণ বিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো-চেয়ারম্যান এইচ টি ইমাম।

শুক্রবার (২১ ডিসেম্বর) রাতে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বরাবর লিখিত চারটি অভিযোগ জমা দেয়ার পর এমন মন্তব্য করেন তিনি।

এইচ টি ইমান বলেন, ‘খালেদা জিয়া বর্তমানে দলের চেয়ারম্যান পদে বহাল নেই, তাই নির্বাচনী আচরণবিধি অনুযায়ী তার ছবি ব্যবহার করা যাবে না। অন্যদিকে তারেক রহমান একজন ফেরারি আসামি। তাই তারেকের ছবি নির্বাচনী পোস্টারে ব্যবহার করা যাবে কিনা-সেই বিষয়টি প্রধান নির্বাচন কমিশনকে বিবেচনার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।’

জামায়াত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘হাইকোর্ট থেকে জামায়াতের কয়েকজন প্রার্থীর বিষয়ে একটি তালিকা কমিশনে পাঠানো হয়েছে। তারা মনোনয়ন ফরমে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করেছেন। দলের জায়গায় তারা মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করেছেন। তাদের মনোনয়ন বাতিলযোগ্য। জামায়াত প্রার্থীদের মনোনয়ন বাতিলের জন্য আমরা কমিশনকে অনুরোধ জানিয়েছি।’

নির্বাচনে পর্যবেক্ষক হিসেবে ১১৮টি এনজিওকে নির্বাচন কমিশন থেকে অনুমোদন দেয়া হয়েছে উল্লেখ করে এইচ টি ইমাম বলেন, ‘এর মধ্যে চারটি এনজিওর বিরুদ্ধে আমাদের আপত্তি রয়েছে। এ চারটি হচ্ছে- খান ফাউন্ডেশন, ডেমক্রেসি ওয়াচ, লাইট হাউজ এবং মানবাধিকার সমন্বয় পরিষদ। নির্বাচনী পর্যবেক্ষক হিসেবে এমন কাউকে দায়িত্ব দেয়া যাবে না, যারা কোনো দল, ব্যক্তি বা বিশেষ কোনো প্রতিষ্ঠানের আর্দশের প্রতি অনুগত।’

এ চারটি প্রতিষ্ঠান বিএনপি রাজনীতি সম্পৃক্ত মন্তব্য করে তিন এ চারটি এনজিওকে নির্বাচনী পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব থেকে অব্যহতি দেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন।

এইচ টি ইমাম আরও বলেন, ‘আমরা লক্ষ্য করলাম, বিএনপি নেতা মওদুদ আহমদ দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি একটি নির্দেশনা দিয়েছেন। যেখানে নির্বাচনী সমাবেশ হবে, সেখানে একটি লাঠির মাথায় ধানের শীষ প্রদর্শন করা হবে। এটিও আচরণবিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন।’

কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘কদিন আগে আমরা পল্টনে এসব লাঠির নির্মম ব্যবহার দেখেছি। তাই বিষয়টি আমলে নিয়ে নির্বাচন কমিশনকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছে।’

এইচ টি ইমাম বলেন, ‘সারাদেশে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা হামলা ও আক্রমণের স্বীকার হচ্ছেন। এ বিষয়টি আগেও আমরা কমিশনে জানিয়েছি। আজও আমরা লিখিতভাবে তথ্য-উপাত্ত দিয়ে অবগত করেছি এবং এর প্রতিকার চেয়েছি। সারাদেশে আমাদের কর্মীরা আক্রান্ত হচ্ছে অথচ বিএনপি-জামায়াত উল্টো অভিযোগ করে যাচ্ছে। তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি এখন থেকে এ ধরনের ঘটনা আমরা প্রতিদিন নির্বাচন কমিশনের কাছে তুলে ধরব।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন পরিচালনা কমিটির পক্ষে রিয়াজুল করিম কাউসার, বিপ্লব বড়ুয়া, নজিবুল্লা হিরু প্রমুখ।

Comments

comments

More Stories

১ min read
১ min read
১ min read
error: Content is protected !!