আগস্ট ১৫, ২০২২ ১০:১৫ অপরাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

ইউএস বাংলানিউজ, নিউইয়র্ক

অগ্রসর পাঠকের বাংলা অনলাইন

ঢাকায় জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার বেশিরভাগ বিপনী বিতান থেকে শুরু করে ফুটপাতের দোকানগুলোতেও কোথাও যেন পা ফেলার জায়গা নেই। সব স্থানেই মানুষ আর মানুষ। যেন জনসমুদ্রে পরিণত হয়েছে ঈদ বাজার।

কেনাকাটায় সকাল থেকে মানুষের ভিড় ছিলই কিন্তু দুপুরের পর থেকে ক্রেতা উপস্থিতি আরও বাড়তে থাকে। ফলে মার্কেটসহ আশেপাশের স্থানগুলো রূপ নেয় জনসমুদ্রে। দৃশ্যটা এমন যেন সাবাই এসেছে ঈদ বাজারে।

ঈদের আরও কয়েকদিন বাকি থাকলেও এরমধ্যে শুক্রবার (৮ জুন) সাপ্তাহিক ছুটি হওয়ায় ক্রেতাদের চাপে বিক্রেতাদেরও দম ফেলার সময় নেই।

রাজধানী ঢাকার নিউমার্কেট, গাউছিয়া, ধানমন্ডি হকার্স, রাপা প্লাজা, বসুন্ধরা সিটি, মেট্রো শপিংমল, এলিফেন্ট রোডসহ আশেপাশের মার্কেটগুলো ঘুরে দেখা গেছে, গত কয়েকদিনের তুলনায় ক্রেতাদের ভিড় সর্বোচ্চ। গাউছিয়া, চাঁদনি চক, নিউমার্কেটে ক্রেতাদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মত।

এ ছাড়া চাঁদনি চক মার্কেটে তো পা রাখার জায়গায় নেই। ক্রেতা আসছেন, থরে থরে সাজানো বাহারি সব ড্রেস দেখছেন, কিনছেন।

এদিকে মার্কেটের পাশ দিয়ে যাওয়া কাস্টমারদের আকৃষ্ট করতে ভেসে আসছে বিক্রয় কর্মীদের হাঁকডাক। বাহারি নিত্য নতুন ডিজাইনের পাশাপাশি দাম তুলনামূলক কম হওয়ায় চাঁদনি চকে ক্রেতাদের উপস্থিতি বছরজুড়েই থাকে। আর ঈদে তো কথায় নেই।

জানা গেছে, চাঁদনি চকে জর্জেটের ওপর কাজ করা থ্রি পিস, বুটিকস আইটেমের থ্রি পিস, লন, ভয়েল ও শার্টিনের থ্রি-পিসের চাহিদা বেশি।

মিসেস জলি নামে একজন ক্রেতা বলেন, শুধু নিজের কেনাকাটাই নয় ঈদের সময় আত্মীয় স্বজন সবার জন্যই কেনাকাটা থাকে। শুক্রবার ছুটির দিন হওয়ার সবাই মার্কেটে আসায় অতিরিক্ত ভিড় হয়েছে। ফলে কোনো কিছুই ভালো করে দেখে কেনার সুযোগ পাওয়া যাচ্ছে না। এ ছাড়া এসব মার্কেটে তুলনামূলক দাম কম পাওয়া যায় বলে ক্রেতাদের ভিড়ও অন্য মার্কেটের তুলনায় বেশি।

আরও পড়ুন

error: Content is protected !!