জুন ২১, ২০২৪ ১:৫৮ পূর্বাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানালেন লাকী আখান্দ

১ min read

আল-আমিন সেলিম:-

কিংবদন্তি শিল্পী-সুরকার লাকী আখান্দের শারীরিক অবস্থা এখন আগের চাইতে কিছুটা ভালো। গত কয়েকদিন ধরেই তার অবস্থা সংকটাপন্ন বলে জানিয়েছিলেন চিকিৎসক। তবে সোমবার সকাল থেকে তার অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে। বর্তমানে তিনি বিএসএমএমইউতে চিকিৎসাধীন।
এদিকে এরই মধ্যে সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর লাকী আখান্দকে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলেন। বেশ কিছু সময় এ কিংবদন্তি সুরকারের সঙ্গে কাটান। এ বিষয়ে লাকী আখান্দের ঘনিষ্ঠজন এরশাদুল হক টিংকু বলেন, খুব ছোট ছোট করে লাকী আখান্দ কথা বলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরের সঙ্গে। তার মধ্যে জরুরি কথাটা ছিল প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি ধন্যবাদ পৌঁছে দেয়ার অনুরোধ। কারণ ২০১৫ সালের অক্টোবরে যখন প্রথম লাকী ভাইয়ের ক্যানসার ধরা পড়লো তখন সবার আগে প্রধানমন্ত্রী আর শাকিল ভাই এগিয়ে এসেছিলেন। নূর ভাইকেও তিনি ধন্যবাদ জানালেন তার সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় থেকে সহযোগিতার জন্য। নূর ভাই ওয়াদা করেন প্রধানমন্ত্রীকে তিনি লাকী ভাইয়ের ধন্যবাদ পৌঁছে দেবেন। লাকি ভাইয়ের চিকিৎসার খোঁজ খবর নেন নূর ভাই। কোনো সমস্যা হলে অবশ্যই জানাতে বলেন তিনি। এদিকে এর আগে লাকী আখান্দের শারীরিক অবস্থার খবর পেয়ে হাসপাতালে তাকে দেখতে গিয়েছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এবং ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র (উত্তর) আনিসুল হক। উল্লেখ্য, লাকী আখান্দ অনেক দিন ধরেই ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করছেন। ছয় মাসের চিকিৎসা শেষে ব্যাংকক থেকে গত বছরের ২৫শে মার্চ দেশে ফেরেন তিনি। সেখানে কেমোথেরাপি নেয়ার পর শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছিল তার। একই বছরের জুনে আবারও থেরাপির জন্য ব্যাংকক যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আর্থিক সংকটের কারণে পরে আর তার যাওয়া হয়নি। লাকী আখান্দের উল্লেখযোগ্য গানের মধ্যে রয়েছে ‘আমায় ডেকো না’, ‘যেখানে সীমান্ত তোমার’, ‘এই নীল মনিহার’, ‘কবিতা পড়ার প্রহর এসেছে’, ‘মামনিয়া, ‘বিতৃঞ্চা জীবনে আমার’, ‘কি করে বললে তুমি’ ‘লিখতে পারি না কোনও গান, ‘ভালোবেসে চলে যেও না’ প্রভৃতি।

Comments

comments

More Stories

১ min read
১ min read
১ min read
error: Content is protected !!