এপ্রিল ১৩, ২০২৪ ৯:৪৮ অপরাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

‘ডিজিটাল বিশ্বকে নিরাপদ করতে জাতিসংঘ ভূমিকা রাখতে পারে’

১ min read

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরাপদ ডিজিটাল বিশ্ব গড়ে তুলতে ভূমিকা পালন এবং তথ্য নিরাপত্তায় নীতিমালা প্রণয়নে জাতিসংঘের কার্যক্রম অব্যাহত রাখার আহ্বান জানিয়েছেন।

স্থানীয় সময় ২৫ সেপ্টেম্বর, মঙ্গলবার জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে নিরস্ত্রীকরণ বিষয়ক দফতর ইউএনওডিএ আয়োজিত সাইবার নিরাপত্তা ও আন্তর্জাতিক সহযোগিতাবিষয়ক একটি উচ্চপর্যায়ের পার্শ্ব অনুষ্ঠানে এ আহ্বান জানান শেখ হাসিনা।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘ডিজিটাল বিশ্বকে অধিকতর নিরাপদ করে তুলতে জাতিসংঘ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। এ ছাড়া তথ্য নিরাপত্তা বিধানে নীতিমালা প্রণয়নের কার্যক্রম অব্যাহত থাকা চাই।’

‘আইসিটির অপব্যবহার আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য মারাত্মক হুমকি সৃষ্টি করতে পারে। সাইবার জগতের কোনো ভৌত সীমানা নেই। রাষ্ট্রসমূহের আইটিকে নিরাপদ করার সামর্থ্য নেহায়েত অপ্রতুল। আন্তঃসংযুক্ত বিশ্বে দুর্বল সংযোগ অন্যান্যের জন্য ব্যাঘাত সৃষ্টি করতে পারে। তাই সাইবার নিরাপত্তা সকলের জন্য উদ্বেগের বিষয়।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘কিছু কিছু দেশ আইসিটিকে সামরিক উদ্দেশ্যে ব্যবহারের বিষয়ে কাজ করছে। সন্ত্রাসী ও সহিংস উগ্রবাদীরা এটিকে তাদের বিষাক্ত বক্তব্য প্রচারে ব্যবহার করছে। আইসিটি খাতে আমাদের কষ্টার্জিত সাফল্যকে নিরাপদ রাখা প্রয়োজন। কেননা সারা বিশ্বে গুরুত্বপূর্ণ অবকাঠামোগুলো নিয়মিতভাবে সাইবার হামলার লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের সত্যিকার উৎস শনাক্তকরণ উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য একটি চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ পর্যন্ত সাইবার নিরাপত্তায় ব্যবহৃত কৌশলসমূহকে আরও অংশগ্রহণমূলক করে গড়ে তোলা দরকার।’

বাংলাদেশ একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ সাইবার নিরাপত্তা ইকো-সিস্টেম তৈরিতে কাজ করছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পাস হওয়ার প্রসঙ্গটি তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে একটি সাইবার সিকিউরিটি ইনসিডেন্ট রেসপন্স টিম রয়েছে, যেটি অপরাপর রাষ্ট্রের সঙ্গে সহযোগিতা করে থাকে এবং প্রশিক্ষণের জন্য একটি ডিজিটাল ফরেনসিক ল্যাবরেটরি স্থাপন করা হয়েছে। একটি জাতীয় সাইবার নিরাপত্তা সংস্থা প্রতিষ্ঠা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আমরা অপর বন্ধু রাষ্ট্রগুলোর অভিজ্ঞতা থেকে শেখার আশা করি।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের অবশ্যই আগামী প্রজন্মের জন্য একটি নিরাপদ, স্থিতিশীল, শান্তিপূর্ণ, অংশগ্রহণমূলক ও সুলভ সাইবার বিশ্ব গঠনের জোরালো রাজনৈতিক সংকল্প ব্যক্ত করা উচিত।’ -বাসস

Comments

comments

More Stories

১ min read
১ min read
১ min read
error: Content is protected !!