এপ্রিল ১১, ২০২১ ১০:০৮ পূর্বাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

ইউএস বাংলানিউজ করপোরেশন, নিউইয়র্ক

অগ্রসর পাঠকের বাংলা অনলাইন

তিন সিটিতে নির্বাচনের প্রস্তুতি শেষ; কাল ভোটগ্রহণ

বাংলাদেশের রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের সব প্রস্তুতি শেষ করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ইতোমধ্যেই ব্যালট পেপার ও অন্যান্য সামগ্রী পাঠানো হয়েছে। আগামীকাল (রোববার) তিন সিটিতে এসব বিতরণ করা হবে। নির্বাচন উপলক্ষে তিন শহরে মোতায়েন করা হয়েছে প্রয়োজনীয় সংখ্যক আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য। এসব সিটির ১৫টি কেন্দ্রে ইভিএম ব্যবহার করা হবে। প্রস্তুতি শেষ হয়েছে এরও। আগামী সোমবার (৩০ জুলাই) এই তিন সিটিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

জানা যায়, তিন সিটিতে নির্বাচনের দিন সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, তিন সিটিতে নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য আমরা সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ করেছি। ভোটাররা যাতে নির্ভয়ে ভোট দিতে পারেন সেই ব্যবস্থাও করা হয়েছে। আমরা যেন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দিতে চাই।

নির্বাচন সুষ্ঠু করার জন্য ইসি একটি মনিটরিং কমিটি গঠন করেছে। জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন (এনআইডি) উইংয়ের মহাপরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলামের নেতৃত্বে এই কমিটিতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরাও রয়েছেন।

নির্বাচন উপলক্ষে ২৯ জুলাই মধ্যরাত থেকে ৩০ জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত তিন সিটিতে মোটরসাইকেল, ট্যাক্সিক্যাব, মাইক্রোবাস, জিপ, পিকআপ ভ্যান, ট্রাক, তিন চাকার গাড়ির চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। তবে ২৮ তারিখ সন্ধ্যা ৬টা থেকে ৩১ জুলাই পর্যন্ত সেখানে মোটরসাইকেল চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

অন্যদিকে ২৭ জুলাই মধ্যরাত থেকে নির্বাচন শেষ না হওয়া পর্যন্ত সেখানে বহিরাগতদের অবস্থান নিষিদ্ধ করা হয়েছে। নির্বাচনের ৩২ ঘণ্টা আগে অর্থাৎ ২৮ তারিখ থেকে ১ আগস্ট অর্থাৎ নির্বাচনের ৪৮ ঘণ্টা পর পর্যন্ত প্রচার-প্রচারণা, সমাবেশ নিষিদ্ধ।

এই তিন সিটির নির্বাচন উপলক্ষে কমিশনের ৩৫টি পর্যবেক্ষক কমিটি থাকবে। ইসির জেলা, উপজেলা ও বিভাগীয় জেষ্ঠ কর্মকর্তারা রয়েছেন এই কমিটিতে। এছাড়াও আন্তর্জাতিক ও স্থানীয় ৬০৯ জন পর্যবেক্ষক মাঠে থাকবেন। পর্যবেক্ষকদের মধ্যে ১৫টি স্থানীয় প্রতিষ্ঠানের ৫৯২ জন ও বিদেশি রয়েছেন ১৭ জন। এর মধ্যে যুক্তরাষ্টের পর্যবেক্ষকও রয়েছেন।

ইসির একাধিক সূত্র জানায়, রাজশাহীতে ১৯২ জন স্থানীয় ও সাতজন বিদেশি পর্যবেক্ষক, বরিশালে ২০৩ জন স্থানীয় ও তিনজন বিদেশি এবং সিলেটে ২০৩ জন স্থানীয় ও সাতজন বিদেশি পর্যবেক্ষক রয়েছেন।

নির্বাচন উপলক্ষে তিন সিটিতে ২৪৮ প্লাটুন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। প্রতিটি কেন্দ্রে মোতায়েন থাকবেন ২২ জন পুলিশ ও ভিডিপি সদস্য। তবে অতি গুরুত্বপূর্ণ বা ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ২৪ জন করে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী নিয়োগ করা হয়েছে। এছাড়া ৮৭ প্লাটুন র‌্যাব সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। এর মধ্যে রাজশাহী ও বরিশালে ৩০ প্লাটুন এবং সিলেটে ২৭ প্লাটুন।

এছাড়াও তিন সিটিতে ৪৪ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। এর মধ্যে রাজশাহী ও বরিশালে ১৫ প্লাটুন করে এবং সিলেটে ১৪ প্লাটুন। এছাড়াও রয়েছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সমন্বয়ে গঠিত ভ্রাম্যমাণ ফোর্স। থাকবেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটও।

নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, তিন সিটির ১৫টি কেন্দ্রে ইলেকট্রিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করা হবে। এর মধ্যে রাজশাহী ও সিলেটের দুটি কেন্দ্রে ও বরিশালের ১১টি কেন্দ্রে ইভিএম ব্যবহার করা হবে।

জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন (এনআইডি) উইংয়ের মহাপরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, ইভিএম ব্যবহারের সব প্রস্তুতি শেষ করা হয়েছে। আশাকরি আগের কেন্দ্রগুলোর মতো এবারও আমরা সুফল পাব এবং ভোটাররা ভালোভাবে ভোট দিতে পারবেন।

আরও পড়ুন

error: Content is protected !!