ডিসেম্বর ৩, ২০২২ ৩:১৫ অপরাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

ইউএস বাংলানিউজ, নিউইয়র্ক

অগ্রসর পাঠকের বাংলা অনলাইন

জন্মসূত্রে মার্কিন নাগরিকত্বের বিধান বাতিল করতে চান ট্রাম্প

অভিবাসীদের সন্তানদের জন্মসূত্রে মার্কিন নাগরিকত্ব সংক্রান্ত একটি আইন বাতিল করতে নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষরের পরিকল্পনা করছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মুলত নাগরিক নন এবং অনথিভুক্ত মার্কিন অভিবাসী যারা; তাদের সন্তানদের যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে জন্মসূত্রের নাগরিকত্ব অধিকার বাতিল করার পক্ষে যুক্তরাষ্ট্র সরকার। 

মার্কিন সংবাদমাধ্যম অ্যাক্সিওসকে মঙ্গলবার দেয়া এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প তার এই পরিকল্পনার কথা জানান।

মার্কিন এই প্রেসিডেন্ট বলেন, দেশটিতে ১৯৬৮ সাল থেকে চালু থাকা এই বিশেষ সুবিধা বাতিল করতে আইনি পরামর্শকদের সঙ্গে কাজ করছেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রে কয়েক দশক ধরে চলে আসা এই আইনে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে জন্মগ্রহণকারী যে কেউ স্বয়ংক্রিয়ভাবে মার্কিন নাগরিকত্ব পাবেন। ট্রাম্প বলেন, বিশ্বে যুক্তরাষ্ট্রই একমাত্র দেশ যেখানে একজন ব্যক্তি এলেন এবং একটি সন্তান নিলেন। আর এই সন্তান সব ধরনের সুযোগ-সুবিধাসহ ৮৫ বছরের জন্য মার্কিন নাগরিকত্ব পাবে।

তিনি বলেন, এটি হাস্যকর এবং শেষ করার সময় এসেছে…। জন্মসূত্রে নাগরিকত্ব পাওয়ার এই বিধান বিলুপ্ত করার প্রক্রিয়ায় আছে। আর এই বিধান বাতিল করা হবে নির্বাহী এক আদেশের মাধ্যমে।

এ বিধান নির্বাহী আদেশের মাধ্যমে বাতিল করতে পারেন উল্লেখ করে মার্কিন এই প্রেসিডেন্ট বলেন, আমাকে সব সময় বলা হয় যে, এটা করার জন্য সংবিধানের সংশোধনী দরকার। চিন্তা করুন? আপনি পারবেন না।

কিন্তু এটাতো ব্যাপক বিতর্কিত একটি বিষয়; এমন প্রশ্নের জবাবে ট্রাম্প বলেন, আপনি কংগ্রেসের আইনের মাধ্যমে নিশ্চিতভাবে এটি করতে পারেন। কিন্তু এখন তারা (কংগ্রেসের সদস্যরা) বলছেন, আমি শুধুমাত্র নির্বাহী আদেশের মাধ্যমেই এই বিধানের অবসান ঘটাতে পারি।

তবে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জন্মসূত্রে মার্কিন নাগরিকত্ব পাওয়ার যে বিধান রয়েছে সেটি বাতিল করলে শেষ পর্যন্ত এ বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়াতে পারে।কেননা যুক্তরাষ্ট্রের  সংবিধানের চতুর্দশ সংশোধনীতে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রে যারা জন্মগ্রহণ করেছেন, স্বাভাবিকভাবে বেড়ে উঠেছেন তারা আইনি দৃষ্টিতেই মার্কিন নাগরিক হিসেবে গণ্য হবেন। তারা যুক্তরাষ্ট্রের যে কোনো অঙ্গরাজ্যেই বসবাস করেন না কেন এই সুযোগ পাবেন।

-অ্যাক্সিওস, আলজাজিরা।

আরও পড়ুন

error: Content is protected !!