এপ্রিল ১৮, ২০২৪ ১:৪৪ অপরাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

ফের সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারালেন নেতানিয়াহু

১ min read

দ্বিতীয়বারের মতো সাধারণ নির্বাচনেও সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারালেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। ১৮ সেপ্টেম্বরের নির্বাচনে ৯৬ শতাংশ ভোট গণনা শেষে দেখা গেছে সমান ভোট পেয়েছেন নেতানিয়াহু এবং প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বেনি গানৎজ ।

বিবিসি জানায়, একক সংখ্যাগরিষ্ঠতার জন্য কোনো একটি দলকে ইসরায়েলের পার্লামেন্ট নেসেটের ১২০টি আসনের মধ্যে অন্তত ৬১টি আসন পেতে হবে। সেখানে নেতানিয়াহুর ডানপন্থী লিকুদ পার্টি এবং গ্যান্টজের ব্লু অ্যান্ড হোয়াইট পার্টি দুই পক্ষই অর্জন করেছে ৩৩টি আসন।

ইসরায়েলের ইতিহাসে কখনো কোনো দলই একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি। দেশটিতে সব সময় জোট সরকারই ক্ষমতাসীন হয়েছে। এপ্রিলের নির্বাচনেও বেনি গানৎজের সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে সমান ভোট পান নেতানিয়াহু। তবে ডানপন্থী দলগুলোর সমর্থন পাওয়ায় এগিয়ে যান তিনি।

কিন্তু টেকসই সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে একটি জোট সরকার গঠনে ব্যর্থ হন নেতানিয়াহু। ফলে সরকার গঠনের নির্ধারিত সময় পার হয়ে যাওয়ায় পার্লামেন্ট ভেঙে দেন এমপিরা। এরপর দ্বিতীয়বার নির্বাচন অনিবার্য হয়ে পড়ে দেশটিতে। কিন্তু দ্বিতীয়বারেও ক্ষমতা হারানোর শঙ্কায় আছেন বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। সাবেক সামরিক প্রধান বেনি গানৎজের রীতিমতো তার ঘাড়ে নিশ্বাস ফেলছেন।

এ দিকে সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যাভিগডো লিবারম্যানের দল ইসরায়েল বেইতেনু পেয়েছেন ৯টি আসন। দেশটির সরকার গঠনে দীর্ঘদিন ধরেই তুরুপের তাস লিবারম্যান। এপ্রিল নির্বাচনের পর নেতানিয়াহুর সরকারে থাকতে অস্বীকৃতি জানান ক্ষমতাসীন জোটের এ শরিক। ফলে সংসদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়া নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন নেতানিয়াহু, সেই সঙ্গে রেকর্ড পঞ্চমবারের মতো ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পথেও।

এদিকে লিবারম্যানও এককভাবে কাউকে সমর্থন দিতে ইচ্ছুক নন। বুধবার সকালেও তিনি মত দেন, লিকুদ পার্টি এবং ব্লু অ্যান্ড হোয়াইট পার্টির সমন্বিত সরকারকেই কেবল তিনি সমর্থন দেবেন। কিন্তু নেতানিয়াহু এবং গানৎজ কেউই একত্রে সরকার গঠনে ইচ্ছুক নন।

Comments

comments

More Stories

১ min read
১ min read
১ min read
error: Content is protected !!