অক্টোবর ১, ২০২২ ৪:২৩ অপরাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

ইউএস বাংলানিউজ, নিউইয়র্ক

অগ্রসর পাঠকের বাংলা অনলাইন

‘আমি আমার রাজকুমারকে পেয়ে গেছি’

প্রিন্স হ্যারি তার শাশুড়ি ডোরিয়া র‌্যাগল্যান্ডকে ধন্যবাদ দিয়েছেন। বিয়ের পর আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে শাশুড়ির জন্যই মেগানকে পেয়েছেন বলেও জানান প্রিন্স হ্যারি। তার অনুমতি না পেলে হ্যারি মনের রাজকন্যাকে পেতেন না। দর্শক সারিতে বসে থাকা মেগানের মায়ের চোখ তখন ছলছল করছিল।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রথা ভেঙে বক্তব্য দিয়েছেন রাজবধূ মেগান। বক্তব্যের শুরুতেই তিনি শ্বশুর প্রিন্স চার্লসকে ধন্যবাদ জানান। আর হ্যারিকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘আমি আমার রাজকুমারকে পেয়ে গেছি।’

বিয়েতে মেগানের বাবা টমাস উপস্থিত ছিলেন না। মেগান জানান, হৃদযন্ত্রে অস্ত্রোপচার হওয়ার কারণে তার বাবা বিয়েতে উপস্থিত থাকতে পারেননি।

তবে রাজ পরিবারের তরফ থেকে মেগানের বাবাকে সম্মান দেখানো হয়েছে। ডোরিয়া র‌্যাগল্যান্ডের পাশের আসনে মেগানের বাবার বসার আসন ছিল। কিন্তু মেগানের বাবা না আসায় রাজ পরিবারের নির্দেশ অনুযায়ী মেগানের বাবার বসার আসনটি খালি রাখা হয়। শুধু তাই নয়, টমাস না থাকার কারণে মেগানকে গির্জার পথটুকু এগিয়ে দেন শ্বশুর প্রিন্স চার্লস।

১৯ মে ব্রিটিশ সিংহাসনের উত্তরাধিকার প্রিন্স হ্যারি ও মার্কিন অভিনেত্রী মেগান মার্কেল বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। রাজপরিবারের এ বিয়েকে ঘিরে যুক্তরাজ্যসহ সারা বিশ্বে ব্যাপক উৎসাহ ছিল। হ্যারি-মেগানের বিয়ের স্বাক্ষী হতে উইন্ডসর ক্যাসলের সেন্ট জর্জ চ্যাপেলে হাজির ছিলেন শতশত মানুষ। আর বিশ্বব্যাপী টিভি ও ইন্টারনেটে এ বিয়ে সরাসরি দেখেছেন কোটি কোটি মানুষ। সাত বছর আগে হ্যারির বড় ভাই প্রিন্স উইলিয়ামসের বিয়ের চেয়ে এই বিয়েকে ঘিরে মানুষের আগ্রহ ছিল বেশি।

সূত্র: আনন্দবাজার

আরও পড়ুন

error: Content is protected !!