আগস্ট ৮, ২০২২ ৯:৪১ অপরাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

ইউএস বাংলানিউজ, নিউইয়র্ক

অগ্রসর পাঠকের বাংলা অনলাইন

ভ্লাদিমির পুতিন আবারো রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট হিসেবে আবারো নির্বাচিত হয়েছেন ভ্লাদিমির পুতিন। যদিও এই নির্বাচনে বেশকিছু অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

১৮ মার্চ, রবিবারের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বড় ব্যবধানে প্রত্যাশিত জয় লাভ করেন পুতিন। এই জয়ের ফলে আগামী ছয় বছর রাশিয়ার ক্ষমতায় থাকবেন পুতিন।

দেশটির কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, ৭৬ শতাংশেরও বেশী ভোট পেয়েছেন পুতিন। ২০১২ সালের নির্বাচনে ৬৪ শতাংশ ভোট পেয়েছিলেন তিনি। কাছাকাছি ভোট (১২ শতাংশ) পেয়েছেন কমিউনিস্টপন্থি নেতা পাভেল গ্রুডিনিন।

এই বছর পুতিনের সবচাইতে শক্তিশালী প্রতিযোগী আলেক্সেই নাভালনি এই নির্বাচন থেকে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন তহবিল তছরুপের অভিযোগে। গত ফেব্রুয়ারির ২২ তারিখে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

নির্বাচনের প্রাথমিক ফলাফল জানানোর পর মস্কোর এক র‍্যালিতে উপস্থিত হন পুতিন। এ সময় পুতিন জানান, তার ভোটাররা গত কয়েক বছরের অর্জনকে মূল্য দিয়েছে।

সাংবাদিকরা তাকে জিজ্ঞেস করেন তিনি ছয় বছর পর আবারো নির্বাচনে দাঁড়াবেন কি না? এই প্রশ্নকে হেসে উড়িয়ে দেন তিনি। পুতিন তাদের বলেন, ‘আপনাদের কথা হাস্যকর। আপনারা কী ভাবেন, ১০০ বছর বয়স হওয়া পর্যন্ত আমি ক্ষমতায় থাকব? না!’

নির্বাচনী পরিবেশ

রাশিয়ার কিছু কিছু এলাকায় ভোট কেন্দ্রের আশপাশে বিনামূল্যে খাবার বিতরণ করা হয় এবং দোকানগুলোয় মূল্যছাড় দেওয়া হয়। তবে ভোট কেন্দ্রগুলোর ভিডিও থেকে বেশ কিছু জায়গায় অনিয়ম লক্ষ্য করা যায়। কিছু কিছু জায়গায় দেখা যায়, কর্মকর্তারা বক্সের ভেতরে ইচ্ছেমত ব্যালট পেপার ঢুকিয়ে দিচ্ছেন। ভোটের দিন গোলোস নামে একটি স্বাধীন নির্বাচন পর্যবেক্ষণ সংস্থা শত শত অনিয়ম খুঁজে পায়। এর মাঝে আছে-

  • ভোট শুরু হওয়ার আগেই ব্যালট বক্সের ভেতরে কাগজ ছিল
  • ভোট কেন্দ্রে পর্যবেক্ষকদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি
  • কিছু কিছু মানুষকে জোর করে ভোট দেওয়ার সন্দেহ করা হয়
  • বিভিন্ন ভোট কেন্দ্রে বেলুন এবং এ জাতীয় জিনিসের মাধ্যমে ওয়েবক্যাম ঢেকে দেওয়া হয়

নির্বাচন কমিশনের লাইভ ভিডিও স্ট্রিমেও দেখা গেছে কর্মকর্তারা ব্যালট বক্সে কাগজ ঢুকিয়ে দিচ্ছেন।

দাগেস্তান এলাকায় এক নির্বাচন কর্মকর্তা বলেন, কিছু মানুষ ব্যালট বক্স ঘিরে দাঁড়িয়ে ছিল, আমি নিজের দায়িত্ব পালন করতে পারিনি।

তবে কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের পরিচালক এলা পামফিলোভা বলেন, ‘তেমন কোনো গুরুতর অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া যায়নি।’

সূত্র: BBC

আরও পড়ুন

error: Content is protected !!