সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২২ ৫:১০ পূর্বাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

ইউএস বাংলানিউজ, নিউইয়র্ক

অগ্রসর পাঠকের বাংলা অনলাইন

উইন্ডিজের বিপক্ষে পাঁচ উইকেটের সহজ জয় বাংলাদেশের

মাশরাফি বিন মুর্তজার মাইলফলকের ম্যাচ। বাংলাদেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ২০০তম ওয়ানডে খেলতে নেমেছিলেন তিনি। এমন ম্যাচে বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপ নতুন চেহারায়। চারজন ওপেনার নিয়ে উইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে খেলতে নেমে পড়ে বাংলাদেশ। তাতে বিশেষ ফায়দা না হলেও ফল বাংলাদেশের পক্ষেই এসেছে। পাঁচ উইকেটের জয় তুলে নিয়েছে মাশরাফিবাহিনী।  

মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে আগে ব্যাটিং করতে নামা উইন্ডিজকে আরও একবার অগ্নিপরীক্ষার মুখোমুখি হতে হয়। তবে এবার আর টেস্টের মতো স্পিনে নয়, বাংলাদেশের পেস আক্রমণের সামনেই দিশেহারা হয়ে পড়ে তারা। বাংলাদেশের পেসারদের সাত উইকেট দেওয়া উইন্ডিজ নয় উইকেটে ১৯৫ রান তোলে। জবাবে ৩৫.১ ওভারেই পাঁচ উইকেট হারিয়ে জয়ে তুলে নেয় বাংলাদেশ। এই জয়ে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেল মাশরাফি বিন মুর্তজার দল।

ব্যাটিং লাইন আপ লম্বাই ছিল। আটজন ব্যাটসম্যানের মধ্যে চারজনই ওপেনার। মাশরাফি বিন মুর্তজাও কম বেশি ব্যাট চালাতে জানেন। সেই হিসেবে নয়জন ব্যাটসম্যান নিয়ে মাঠে নেমেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু ১৯৬ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিং করতে নেমে দাপুটে শুরু আসেনি। ৪২ রানের মধ্যে ফিরে যান ইনজুরি কাটিয়ে দলে ফেরা তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েস। পরের জুটিতে এই চাপ অবশ্য কাটিয়ে তোলেন ওপেনার লিটন কুমার দাস ও মুশফিকুর রহিম।

ধীর-স্থিরভাবে খেলতে থাকা লিটন খেই হারিয়ে বিদায় নিয়েছেন। স্টাম্পের বল ক্রস ব্যাটে খেলতে গিয়ে বোল্ড হন ৫৭ বলে ৪১ রান করা ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। সাকিব আল হাসান উইকেটে গিয়ে অন্যদের চেয়ে আলাদা ব্যাটিং করেছেন। কিন্তু বেশি সময় উইকেটে টেকা হয়নি। ২৬ বলে ৩০ রান করে সাজঘরে ফেরেন তিনি। তেড়েফুঁড়ে শুরু করা সৌম্য সরকার ১৩ বলে ১৯ রান করেন। দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৩১তম হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করা মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। মুশফিক ৫৫ ও মাহমুদউল্লাহ ১৪ রানে অপরাজিত থাকেন।

টস জিতে আগে ব্যাটিং করতে নামা উইন্ডিজকে পুরো ইনিংসে শাসন করেছেন বাংলাদেশের বোলাররা। মাশরাফি, মুস্তাফিজ, মিরাজদের বিপক্ষে একেকটি রান তুলতে রীতিমতো যুদ্ধ করতে হয়েছে সফরকারীদের। ১০০ রান পূর্ণ করতেই ক্যারিবীয়দের লেগে যায় ৩০.৫ ওভার। হারাতে হয় চার উইকেট। সেই হিসেবে পরের ২০ ওভার নিয়ে কিছুটা তৃপ্তই হওয়ার কথা রভম্যান পাওয়েলদের।

যদিও তাদের ইনিংস ১৯৫ পর্যন্ত পৌঁছানোর কথা ছিল না। বাংলাদেশের ক্যাচ মিসের মহড়ার কারণে এটা সম্ভব হয়েছে। বল হাতে দ্যুতি ছড়ানোর দিনে ক্যাচ মিসের মহড়ায় নাম লিখিয়েছিলেন অতিরিক্ত ফিল্ডার আরিফুল হক, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, রুবেল হোসেন ও সাকিব আল হাসান। তাদের ফেলা পাঁচটি ক্যাচ তালুবন্দী হলে ক্যারিবীয়দের ইনিংস দেড়শ’র মধ্যেই গুটিয়ে যেতে পারতো।

এর মাঝেও মুগ্ধতা ছড়িয়েছেন ম্যাচ সেরা মাশরাফি বিন মুর্তজা। বাংলাদেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ২০০ ওয়ানডে খেলতে নামা মাশরাফি হাজির হয়েছিলেন দুর্বার চেহারায়। মিরপুরে এদিন তিন উইকেট নিয়ে ওয়ানডে অধিনায়ক টপকে গেছেন ভারতের কিংবদন্তি কপিল দেবকে। ২২৫ ওয়ানডে খেলা কপিল দেবের শিকার ২৫৩ উইকেট। ২৫ ম্যাচ কম খেলেই ভারতের সাবেক এই অধিনায়ককে পেছনে ফেলেছেন মাশরাফি। ২০০ ওয়ানডেতে তার শিকার ২৫৫ উইকেট। বাংলাদেশের জার্সিতে ২৫৪টি। একটি উইকেট এশিয়া একাদশের হয়ে নিয়েছিলেন ডানহাতি এই পেসার।

রোববার উইন্ডিজের বিপক্ষে মাশরাফির বোলিং ফিগার আরও ঝলমলে দেখাতে পারতো। শেষ ওভারের কারণে সেটা হয়নি। ৯ ওভারে মাত্র ১৯ রানে তিন উইকেট তুলে নেন তিনি। ১০ ওভার শেষে সেটা দাঁড়ায় ৩/৩০। শেষ ওভারে ১১ রান খরচা করেন তিনি। পুরো ১০ ওভারে মাত্র দুটি বাউন্ডারি হজম করতে হয়েছে তাকে। নিজের করা প্রথম ওভারের প্রথম বলে চার ও শেষ ওভারের শেষ বলে ছক্কা হজম করতে হয় মাশরাফিকে।

বল হাতে প্রথম সাফল্য এনে দেন সাকিব। অষ্টম ওভারে কাইরন পাওয়েলকে বিদায় করেন তিনি। এরপর কিছুক্ষণের ব্যবধানে দুই উইকেট তুলে নেন মাশরাফি। এর মধ্যে একটি শিকার উইন্ডিজের ইনিংসের সর্বোচ্চ ৪৩ রান করা শাই হোপ। ১০০ পেরনোর আগে শিমরন হেটমায়ারকে আরও একবার নিজের শিকারে পরিণত করেন মিরাজ। দুই টেস্টের চার ইনিংসেই হেটমায়ারকে সাজঘর দেখিয়েছিলেন ডানহাতি এই স্পিনার। ওয়ানডেতেও তার ব্যতিক্রম হলো না।

দলের বিপর্যয়ে মারলন স্যামুয়েলস অনেক চেষ্টা করেছেন। উইকেটেও ছিলেন অনেকটা সময়। কিন্তু রানচাকা সেভাবে ঘোরাতে পারেননি। ৪৮ বলে ২৫ রান করে থামতে হয় তাকে। শেষের দিকে রস্টন চেজ ও কোমো পল উইন্ডিজকে অনেকটাই এগিয়ে দিয়েছেন। চেজ ৩২ ও পল ৩৬ রান করেন। শুরু থেকে অনেকটা সময় উইকেটশূন্য থাকা মুস্তাফিজুর রহমান শেষের দিকের তিন উইকেট তুলে নেন। রুবেল, মিরাজ ও সাকিব একটি করে উইকেট পান।

আরও পড়ুন

error: Content is protected !!