মে ২৯, ২০২৪ ৫:১৯ পূর্বাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

‘আমার জীবন ও কণ্ঠকে যেভাবে খুশি ব্যবহার করব’

১ min read

সাম্প্রতিক রাজনৈতিক বিষয় নিয়ে ভারতের সর্বত্রই চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এমতাবস্থায় অন্য সবার মতো বলিউডের শিল্পী সমাজও এ বিষয়ের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে নিজেদের মতামত ব্যক্ত করুক, সে প্রত্যাশা বাড়ছে জনসাধারণের মধ্যে। এরই মধ্যে নাগরিকত্ব সংশোধন বিল পাসের বিরুদ্ধে ভারতজুড়ে গড়ে ওঠা প্রতিবাদ আন্দোলনে শরিকও হয়েছেন বলিউড তারকাদের কেউ কেউ। স্বরা ভাস্কর, রিচা চাদা, অনুরাগ ক্যাশপ ও জিসান আইয়ুবসহ অনেকেই প্রকাশ্যে সরকারের এ সিদ্ধান্তের কঠোর সমালোচনা করেছেন।

অবশ্য প্রথমসারির অনেক তারকাই এ রকম স্পর্শকাতর রাজনৈতিক বিষয়ে নীরবতা অবলম্বন করছেন। রাজনীতি বিষয়ে তারকাদের কথা না বলা প্রসঙ্গে সম্প্রতি অভিনেত্রী বিদ্যা বালান মতামত ব্যক্ত করেছেন সংবাদমাধ্যম বলিউড হাঙ্গামার কাছে। তারকারা কেন রাজনীতি নিয়ে আলোচনায় অংশ নিতে চান না, আলোচনায় এমন প্রসঙ্গ উঠলে বিদ্যা শুরুতেই বলেন, ‘আমি জানি না কেন তারকাদের কাছ থেকে সব বিষয়ে কথা বলার জন্য প্রত্যাশা করা হয়। আমি উদাহরণ দিয়েই বলি, ৯০ থেকে আমি এমনসব বিষয়ে ডজন ডজন কথা বলতে পারি, যা সম্পর্কে আমার আগ্রহ তুমুল। কিন্তু আমি …এসব নিয়ে কথা বলতে যাই না।’ ‘তুমহারি সুলুখ্যাত এ অভিনেত্রী জানান, সাধারণ মানুষ তারকাদের কাছ থেকে মতামত চায়, এমনকি তারা যদি তা নাও হয়। একজন অভিনেতা হিসেবে তাদের সবসময় এত অধীনতার মধ্যে রাখার বিষয়টি অন্যায়।’

কথোপকথনে বিদ্যা বালান এও বলেন, ‘যদি আমাদের জানাশোনা কম থাকে, যদি আমরা কোনো বিষয়ে কথা বলার সিদ্ধান্ত না নিই, তাহলে আমার মনে হয় তা শতভাগ যুক্তিযুক্ত।… কারণ আজ আমি যদি কোনো কথা বলি, তাহলে তা একসময় আমার বিরুদ্ধেও যেতে পারে।’ বিদ্যা কথা চালিয়ে যান, ‘আমি সেটে কাজ করি, যেখানে একটি ছবির জন্য ২০০ জন মানুষ কাজ করে। যদি কোনো কিছু ছবিটির ওপর প্রভাব ফেলে, তাহলে অসংখ্য মানুষের দুর্দশার জন্য আমার ভেতর অপরাধবোধ তৈরি হবে। আমার মনে হয়, বিষয়টি আরো বৃহৎ পরিসর থেকে বিবেচনা করা প্রয়োজন।’

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ভূমিকা এবং সেখানে অভিমত ব্যক্ত করার প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে বিদ্যার কাছে জানতে চাওয়া হলে তার উত্তর, ‘‘সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের অন্যতম একটি ফাঁদ হলো, কারোরই কোনো অভিমত নেই, কিন্তু সবারই অভিমত আছে। ‘কিছুই নেই’ সম্পর্কে বেশির ভাগ মানুষই কিছুই জানে না। প্রত্যেকেই একে অন্যের চেয়ে বড় গলায় কথা বলার প্রয়োজনবোধ করছে। আমি এ বিষয়ে কোনো বাধ্যবাধকতা অনুভব করি না এবং কেউ যদি আমাকে ভীরু বলে তাতেও আমার কিছু যায় আসে না। এটা আমার জীবন, আমার কণ্ঠকে আমি যেভাবে খুশি ব্যবহার করব।’’

-বলিউড হাঙ্গামা

Comments

comments

More Stories

১ min read
১ min read
১ min read
error: Content is protected !!