মে ২০, ২০২৪ ৮:৪৭ অপরাহ্ণ || ইউএসবাংলানিউজ২৪.কম

সড়ক পরিবহন আইনের খসড়া অনুমোদন

১ min read

মন্ত্রিসভায় নতুন পরিবহন আইনের খসড়া অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।৬ আগস্ট সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিপরিষদ সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত বৈঠকে এ আইনের অনুমোদন দেওয়া হয়।

পরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।

‘সড়ক পরিবহন আইন, ২০১৮’ নামের নতুন আইনের খসড়ায় বেপরোয়া গাড়ি চালকদের জন্য সর্বোচ্চ সাজা পাঁচ বছরের কারাদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। তবে উদ্দেশ্যমূলক হত্যার প্রমাণ পাওয়া গেলে ফৌজদারী আইনে চালকের মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হবে।

নতুন আইনের খসড়ায় অন্যান্য বিধানের মধ্যে রয়েছে–

১. ড্রাইভিং লাইসেন্সের ক্ষেত্রে অপেশাদার চালকদের বয়স ১৮ এবং পেশাদার চালকদের বয়স ২১ হতে হবে।

২. ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার জন্য চালককে কমপক্ষে অষ্টম শ্রেণি পাস হতে হবে। আর চালকের সহকারীকে পঞ্চম শ্রেণি পাস হতে হবে।

৩. ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকলে অনধিক ৬ মাসের কারাদণ্ড বা ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অথবা উভয়দণ্ডে দণ্ডিত করা হবে।

৪. চালকের জন্য ১২ পয়েন্ট বরাদ্দ থাকবে। বিভিন্ন বিধি অমান্যে এই পয়েন্ট কাটা যাবে। পয়েন্ট শূন্যে নেমে আসলে ওই চালকের লাইসেন্স বাতিল করা হবে।

৫. গাড়ি চালানোর সময় চালক মোবাইল ফোন ব্যবহার করলে এক মাসের কারাদণ্ড বা পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা করা হতে পারে।

৬. চালকের সহকারী না থাকলে এক মাসের জেল বা ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হবে।

৭. পোশাকধারী পুলিশের সামনে কোনো চালক অপরাধ করলে, কোনো পরোয়ানা ছাড়াই ওই চালককে গ্রেফতার ও জরিমানা করতে পারবেন পুলিশ।

৮. বিআরটিএ’র যেকোনো শাখায় রেজিস্ট্রেশন বা নবায়ন করতে পারবেন মোটরযানের মালিকরা। মোটরযানের মালিকানা পরিবর্তিত হলে তা ৩০ দিনের মধ্যে কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে।

৯. সড়কের ধারণ ক্ষমতা অনুযায়ী ব্যক্তি বা পরিবার বা প্রতিষ্ঠান বা কোনো এলাকার জন্য মোটরযান রেজিস্ট্রেশনের সংখ্যা বা সীমা নির্ধারণ করা হবে।

১০. লাইসেন্স ছাড়া কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান মোটরযান ড্রাইভিং প্রশিক্ষণ স্কুল পরিচালনা করতে পারবে না।

Comments

comments

More Stories

১ min read
১ min read
১ min read
error: Content is protected !!