যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় হচ্ছে বাংলাদেশের নতুন কনস্যুলেট

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় হচ্ছে বাংলাদেশের নতুন কনস্যুলেট

প্রবাসীদের আরও সহজে সেবা দিতে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার মিয়ামি শহরে বাংলাদেশের নতুন কনস্যুলেট জেনারেল স্থাপন করা হচ্ছে। কনস্যুলেট জেনারেল স্থাপন সংক্রান্ত প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

২৩ ডিসেম্বর, সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সংবাদ ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ‘কূটনৈতিক স্বার্থ বিবেচনায় যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়ন অংশীদার। এ জন্য ফ্লোরিডাতে একটি কনস্যুলেট জেনারেল অফিস করা প্রয়োজন। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ তিনটি কূটনৈতিক মিশন রয়েছে। ওয়াশিংটন ডিসিতে একটি দূতাবাস এবং নিউইয়র্ক ও লস অ্যাঞ্জেলসে কনস্যুলেট জেনারেল আছে।’

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘বিশাল আয়তনের দেশ যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি অঙ্গরাজ্যে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করা এবং সেখানে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের পর্যাপ্ত কনস্যুলার সেবা প্রদান -এই তিনটি মিশনের অত্যন্ত কঠিন ও সময় সাপেক্ষ। এতে করে প্রবাসী বাংলাদেশিদের সরকারের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী স্বল্প সময়ে সর্বোত্তম সেবা নিশ্চিত করা সম্ভব হয় না।’

ফ্লোরিডা অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক গুরুত্ব বিবেচনায় যুক্তরাষ্ট্রের একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গরাজ্য জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘বর্তমানে প্রায় ৪০ হাজারের বেশি প্রবাসী বাংলাদেশি বসবাস করেন। ওয়াশিংটন ডিসি থেকে ফ্লোরিডার দূরত্ব প্রায় এক হাজার ৫০০ কিলোমিটার। এই বিশাল দূরত্ব অতিক্রম করে ফ্লোরিডা থেকে ওয়াশিংটন ডিসিতে গিয়ে কনস্যুলার সেবা গ্রহণ করা প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য যথেষ্ট সময় ও ব্যয় সাপেক্ষ।’

তিনি বলেন, ফ্লোরিডাতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ৮১টি কনস্যুলেট রয়েছে। যার মধ্যে ৬১টি কনস্যুলেটই মিয়ামি শহরে অবস্থিত। সেক্ষেত্রে অন্যান্য দেশের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপিত হবে। নতুন এই কনস্যুলেট জেনারেল অফিস হলে বাংলাদেশের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের কূটনৈতিক সম্পর্কে নতুন মাত্রা যোগ করবে বলেও আশা প্রকাশ করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

Comments

comments

error: Content is protected !!